গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধিত। রেজি নং – ১৬৯

চট্টগ্রামে আওয়ামী লীগ ১২, স্বতন্ত্র ৩ ও ১ আসনে জাতীয় পার্টির জয়

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের ১৬টি আসনের মধ্যে দুটি আসন হারিয়েছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। একটি আসনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত জাতীয় পার্টির এক প্রার্থী শোচনীয়ভাবে হেরেছেন। আওয়ামী লীগেরই তিন স্বতন্ত্র প্রার্থী পেয়েছেন বড় ব্যবধানের জয়। ভোটের শেষ মুহূর্তে সারা দেশে এই প্রথম একজন প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন। তিনি চট্টগ্রাম-১৬ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী। দেখা গেছে, চট্টগ্রামের সাতটি আসন থেকে এবারই প্রথম সংসদে যাচ্ছেন সাত নতুন মুখ। এর হলেন চট্টগ্রাম-১ আসনের মাহবুব উর রহমান রুহেল, চট্টগ্রাম-২ আসনের খাদিজাতুল আনোয়ার সনি, চট্টগ্রাম-৪ আসনের এসএম আল মামুন, চট্টগ্রাম-৮ আসনের আবদুচ ছালাম, চট্টগ্রাম-১২ আসনের মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৫ আসনের আবদুল মোতালেব এবং চট্টগ্রাম-১৬ আসনের মুজিবুর রহমান।
(চট্টগ্রাম-১) মীরসরাই আসনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মাহবুব উর রহমান রুহেল। তিনি এই আসন থেকে ৮৯ হাজার ৬৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।
তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী গিয়াস উদ্দিন (ঈগল) পেয়েছেন ৫২ হাজার ৯৯৬ ভোট। এছাড়া জাতীয় পার্টির প্রার্থী এমদাদ হোসাইন চৌধুরী লাঙ্গল প্রতীকে পেয়েছেন ৪০৮ ভোট। ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের প্রার্থী আব্দুল মান্নান (চেয়ার) প্রতীকে পেয়েছেন ৫০৩ ভোট, একতারা প্রতীকের নূরুল করিম আফচার পেয়েছেন ১৯৯ ভোট। এ আসনে মোট কেন্দ্র সংখ্যা ১০৬টি।
চট্টগ্রাম-২ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী খাদিজাতুল আনোয়ার সনি বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। নৌকা প্রতীকে তিনি পেয়েছেন ১ লাখ ১ হাজার ৭৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী ছিলেন সদ্য পদত্যাগী উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা হোসাইন মুহাম্মদ আবু তৈয়ব। তরমুজ প্রতীক নিয়ে তিনি পেয়েছেন ৩৪ হাজার ৭৮৪ ভোট। এর আগে তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান ও বর্তমান সংসদ সদস্য সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভাÐারী নৌকার প্রার্থীর সমর্থনে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ান। তবু ব্যালটে তার নাম থাকায় ফুলের মালা প্রতীকে পড়েছে ২৩০ ভোট।
চট্টগ্রাম-৩ স›দ্বীপ আসনে হ্যাট্রিক বিজয় লাভ করেছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মাহফুজুর রহমান মিতা। তিনি ৫৪ হাজার ৭ শত ৫৬ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ) এর সভাপতি ডা. জামাল উদ্দিন চৌধুরী পেয়েছেন ২৮ হাজার ৭০ ভোট। স›দ্বীপে মোট ভোটার ২ লক্ষ ৪১ হাজার ৯ শত ১৪ জন। ভোট পড়েছে শতকরা ৩৬ দশমিক ২১ ভাগ। সাংসদ মাহফুজুর রহমান মিতা এবার নিয়ে পরপর তিনবার জয়লাভ করেছেন। অন্যদিকে এটি ডা. জামালের দ্বিতীয় হার। এর আগে তিনি ২০০৮ সালে তৃতীয় হয়েছিলেন। এছাড়া অন্য ৬ জন প্রার্থীর মধ্যে মশাল প্রতীকের প্রার্থী নুরুল আকতার পেয়েছেন ৫৬৬ ভোট, লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে জাতীয় পার্টির এম. এ ছালাম পেয়েছেন ১৩৫ ভোট, মোমবাতি প্রতীক নিয়ে মুহাম্মদ উল্যাহ খান ২২২ ভোট পেয়েছেন, নুরুল আনোয়ার হিরন একতারা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭০ ভোট, আবদুর রহীম চেয়ার প্রতীকে পেয়েছেন ১১৭ ভোট, অধ্যক্ষ মোকতাদের আজাদ খান আম প্রতীক নিয়ে ১৫০ ভোট পেয়েছেন। বাতিলকৃত ভোটের সংখ্যা ৩৫০৫ টি।
চট্টগ্রাম-৪ (সীতাকুÐ) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এস এম আল মামুন বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। ঘোষণাকৃত ফলাফল দেখা যায়, চট্টগ্রাম- ৪ আসনে এস এম আল মামুন পেয়েছেন ১ লাখ ৪২ হাজার ৭০৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী লাঙ্গল প্রতীকের জাতীয় পার্টির প্রার্থী দিদারুল কবির পেয়েছেন ৪ হাজার ৮৮০ ভোট।
চট্টগ্রাম-৫ (হাটহাজারী) আসনে টানা চতুর্থবারের মত জয়ী হয়েছেন জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ। তিনি পেয়েছেন ৫০ হাজার ৯৭৭ ভোট। এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী কেটলি প্রতীকের প্রার্থী মো. শাহজাহান পেয়েছেন ৩৬ হাজার ২৫১। একই আসনে তৃণমূল বিএনপির সোনালী আঁশ প্রতীকের প্রার্থী নাজিম উদ্দিন পেয়েছেন ১ হাজার ৪০১ ভোট।
(চট্টগ্রাম-৬, রাউজান) আসনে টানা পঞ্চমবার নৌকা প্রতীকে জয়ী হলেন রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। এ আসনে ভোট পড়েছে ৭২ দশমিক ৭২ শতাংশ। তিনি পেয়েছেন ২ লাখ ২১ হাজার ৫৭২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিউল আজম পেয়েছেন ৩ হাজার ১৫৯ ভোট। এ ছাড়া জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ সফিক-উল আলম চৌধুরী পেয়েছেন ২ হাজার ৬৫৪ ভোট, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের স ম জাফর উল্লাহ চেয়ার প্রতীকে পেয়েছেন ১ হাজার ৯৩৭ ভোট ও তৃণমূল বিএনপির (সোনালি আঁশ) প্রার্থী মো. ইয়াহিয়া জিয়া চৌধুরী পেয়েছেন ১ হাজার ১৪৯ ভোট।
রাঙ্গুনিয়া ও বোয়ালখালী আংশিক আসন (চট্টগ্রাম-৭) চতুর্থবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি। তিনি এই আসন থেকে ১ লাখ ৯৮ হাজার ৯৭৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী ইসলামী ফ্রন্টের প্রার্থী অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ ইকবাল হাছান (মোমবাতি) পেয়েছেন ৯ হাজার ৩০১ ভোট। এ ছাড়া জাতীয় পার্টির মুসা আহমেদ রানা (লাঙল) ২ হাজার ২০৬ , তৃণমূল বিএনপির খোরশেদ আলম (সোনালি আঁশ) ১ হাজার ৩৩১, ইসলামিক ফ্রন্টের আহমদ রেজা (চেয়ার) ১ হাজার ৩৯০, সুপ্রিম পার্টির মোরশেদ আলম (একতারা) ১ হাজার ১৩০ ভোট পেয়েছেন।
চট্টগ্রাম -৮ (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) আসনে ফলাফলে বেসরকারি ভাবে জয়ী হয়েছেন কেটলি প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আবদুচ ছালাম। তিনি পেয়েছেন ৭৮ হাজার ২৬৬ ভোট তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী বিজয় কুমার চৌধুরী পেয়েছেন ৪১ হাজার ৫০০ ভোট। এছাড়া জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী সোলাইমান আলম শেঠ পেয়েছেন ৮ হাজার ২৩২ ভোট। এ আসনে ভোট কেন্দ্র রয়েছে ১৮৪টি।
নগরের কোতোয়ালী (চট্টগ্রাম-৯) আসনে বড় ব্যবধানে দ্বিতীয়বারের মতো বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী, শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। তিনি পেয়েছেন ১ লাখ ৩০ হাজার ৯৯৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতীকের প্রার্থী সনজিদ রশিদ চৌধুরী পেয়েছেন ১ হাজার ৯৮২। এ ছাড়া এ আসনে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মোমবাতি প্রতীকের প্রার্থী আবু আজম পেয়েছেন ১ হাজার ৫৩২ ভোট।
চট্টগ্রাম-১০ (ভবলমুরিং-পাঁচলাইশ) আসনে বেসরকারিভাবে জয়ী হয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মহিউদ্দিন বাচ্চু। মহিউদ্দিন বাচ্চু পেয়েছেন ৫৯ হাজার ২৪ ভোট। তার নিটকতম প্রতিদ্ব›দ্বী ফুলকপি প্রতীকের প্রার্থী মনজুর আলম পেয়েছেন ৩৯ হাজার ৫৩৫ ভোট। এছাড়া ফরিদ মাহমুদ পেয়েছেন ২ হাজার ৩৮ ভোট।
চট্টগ্রাম-১১ (বন্দর) আসনে টানা জয় পেয়েছেন এম আবদুল লতিফ। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হলেও দলের প্রভাবশালী নেতাদের একাংশের বিরোধিতার মধ্যেও ভোটযুদ্ধে জয়ী হলেন লতিফ। তিনি পেয়েছেন ৫১ হাজার ৪৯৪ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী জিয়াউল হক সুমন পেয়েছেন ৪৬ হাজার ৫২৫ ভোট।
চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনে ভরাডুবি হয়েছে স্বতন্ত্র প্রার্থী সামশুল হক চৌধুরীর। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর কাছে ৮৫ হাজার ৭৩ ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন তিনি। মোতাহেরুল ইসলাম এই আসন থেকে ১ লাখ ২০ হাজার ৩১৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। সেখানে সামশুল পেয়েছেন মাত্র ৩৫ হাজার ২৪০ ভোট। এছাড়া আরেক প্রার্থী মোহাম্মদ নুরুচছফা সরকার (লাঙ্গল) প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন মাত্র ৩৭৮ ভোট।
চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা-কর্ণফুলী) আসনে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের মনোনীর প্রার্থী ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ। এনিয়ে চতুর্থবারের মতো সংসদ সদস্য হলেন তিনি। মোট ৪৬টি ভোটকেন্দ্রের ঘোষিত ফলাফলে নৌকা প্রতীক নিয়ে সাইফুজ্জামান চৌধুরী পেয়েছেন ৬০ হাজার ৭৯ ভোট। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী ইসলামী ফ্রন্টের মাস্টার আবুল হোসেন (মোমবাতি) পেয়েছেন এক হাজার ৬৬১ ভোট। এছাড়া জাতীয় পার্টির প্রার্থী আব্দুর রব চৌধুরী টিপু (লাঙ্গল) পেয়েছেন এক হাজার ৯২ ভোট, ইসলামিক ফ্রন্টের স ম হামেদ হোসাইন (চেয়ার) পেয়েছেন ২৯৩ ভোট, খেলাফত আন্দোলনের মৌলভী রশিদুল হক (বটগাছ) পেয়েছেন ২৮৫ ভোট, তৃণমূল বিএনপির মকবুল আহমদ চৌধুরী সাদাদ (সোনালী আঁশ) পেয়েছেন ২৭৮ ভোট, সুপ্রিম পার্টির মো. আরিফ উদ্দিন (একতারা) পেয়েছেন ১৮২ ভোট।
চন্দনাইশ-সাতকানিয়া আংশিক (চট্টগ্রাম-১৪) আসনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম। তিনি এই আসন থেকে ৭১ হাজার ১২৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবদুল জাব্বার চৌধুরী পেয়েছেন ৩৬ হাজার ৮৮৪ ভোট। লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী আবু জাফর মো. ওয়ালী উল্লাহ পেয়েছেন ১৬২ ভোট। চেয়ার প্রতীকের প্রার্থী মো. আবুল হোছাইন পেয়েছেন ১২১ ভোট। ফুলের মালা প্রতীকের প্রার্থী মো. আলী ফারুকী পেয়েছেন ৯৪ ভোট। একতারা প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ আয়ুব পেয়েছেন ১৯৬ ভোট। টেলিভিশন প্রতীকের প্রার্থী মো. গোলাম ইসহাক খান পেয়েছেন ৬১৩ ভোট। মোমবাতি প্রতীকের প্রার্থী সেহাব উদ্দিন মু. আব্দুস সামাদ পেয়েছেন ৫ হাজার ২৩১ ভোট।
সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনে (চট্টগ্রাম-১৫) বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল মোতালেব। তিনি এই আসন থেকে ৮৫ হাজার ৬২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী পেয়েছেন ৩৯ হাজার ২৫২ ভোট। এ ছাড়া জাতীয় পার্টির প্রার্থী লাঙ্গল প্রতীকে মোহাম্মদ ছালেম পেয়েছেন ৩৮০ ভোট। মিনার প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ২৯৪ ভোট। মোমবাতি প্রতীকের প্রার্থী মোহাম্মদ আলী হোসাইন পেয়েছেন ৩৬২ ভোট।
চট্টগ্রাম-১৬ আসনে বিপুল ভোটে জয়ী হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রতীকের প্রার্থী মুজিবুর রহমান। তিনি এই আসন থেকে ৫৭ হাজার ৪৯৯ হাজার পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্ব›দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল্লাহ কবির লিটন (ট্রাক) পেয়েছেন ৩২ হাজার ২২০ ভোট। এ ছাড়া বাংলাদেশ ইসলামিক ফ্রন্টের মোহাম্মদ মহিউল আলম চৌধুরী (মোমবাতি) ১ হাজার ১২৫, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের প্রার্থী আব্দুল মালেক পেয়েছেন ৫০৩ ভোট। মোট কেন্দ্র সংখ্যা ১১৪টি। এ আসনে ৩৬ হাজার ৯৬৮ ভোট বাতিল করা হয়। এর আগে এ আসনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমানের প্রার্থিতা বাতিল করে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

এই বিভাগের সব খবর

শাহ আমানত বিমানবন্দরে স্বর্ণসহ তিন যাত্রী আটক

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুবাই থেকে আসা তিন যাত্রীর কাছ থেকে ১ কেজি স্বর্ণ উদ্ধার করেছেন জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা এনএসআই ও কাস্টমস...

লামা উপজেলা নির্বাচনে ৯ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা দান

বান্দরবান জেলার লামা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বদ্বিতার লক্ষে চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ৯ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।...

রাউজানে ভোররাতের অগ্নিকাণ্ডে তিন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই

রাউজানে ভোররাতে সংগঠিত অগ্নিকাণ্ডে তিন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। ২২ এপ্রিল (সোমবার) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার পাহাড়তলী ইউনিয়নের শেখপাড়া গ্রামের শেখপাড়া...

সর্বশেষ

শাহ আমানত বিমানবন্দরে স্বর্ণসহ তিন যাত্রী আটক

চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুবাই থেকে আসা তিন...

লামা উপজেলা নির্বাচনে ৯ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমা দান

বান্দরবান জেলার লামা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বদ্বিতার লক্ষে চেয়ারম্যান,...

রাউজানে ভোররাতের অগ্নিকাণ্ডে তিন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই

রাউজানে ভোররাতে সংগঠিত অগ্নিকাণ্ডে তিন ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান পুড়ে ছাই...

সাউন্ড সিস্টেম পরিবহনের পিকআপ চুরি, গ্রেপ্তার ১

“আফছার মাইক সার্ভিস” নামের এক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাউন্ড সিস্টেম...

হালিশহরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব ব্যাটারি কমপ্লেক্সের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের হালিশহর সেনানিবাসে আর্টিলারি সেন্টার ও...

দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় বাংলাদেশ সর্বদা প্রস্তুত : প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যেকোনো বহিঃশত্রুর আক্রমণ থেকে দেশের...