পাহাড় ধসের শঙ্কায় বন্ধ ফৌদারহাট-বায়েজিদ লিংক রোড

নিজস্ব প্রতিবেদক
চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে বায়েজিদ বোস্তামী থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত চট্টগ্রামের প্রথম বাইপাস সড়ক। মঙ্গলাব ৮ জুন, বিকেল ৫টার পর থেকে সড়কটি বন্ধ থাকবে। তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস। চলতি বর্ষা মৌসুমে সড়কটি সম্পূর্ণ বন্ধ রাখা হবে। বর্ষা মৌসুম শেষ হলে আগামী আগস্ট মাসের দিকে যান চলাচলের জন্য সড়কটি উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। সড়কটি বন্ধ রাখতে সিডিএ ইতোমধ্যে ট্রাফিক বিভাগ ও পরিবেশ অধিদপ্তরকে চিঠি দিয়েছে।
বায়েজিদ বোস্তামী থেকে ফৌজদারহাট পর্যন্ত সিডিএ’র নির্মাণাধীন এই সড়কে ছোট-বড় মিলে ১৮টি পাহাড় রয়েছে। যেখানে পাঁচ থেকে ছয়টি পাহাড় ঝুঁকিপূর্ণ রয়েছে। নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটিতে প্রতিদিন হাজার হাজার যান চলাচল করছে। দুর্ঘটনার ঝুঁকি এড়াতে বেশ কিছুদিন আগেই ঝুঁকিপূর্ণ সড়কের একপাশ বন্ধ করে দেয় সিডিএ।
সিডিএ’র প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস বলেন, বায়েজিদ বাইপাসের এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর ওমেন গেট থেকে প্রায় চার কিলোমিটার পর্যন্ত বন্ধ থাকবে। সড়কের উভয়পাশে ‘সড়ক বন্ধ’ সাইনবোর্ড থাকবে। সড়কটি বন্ধ রাখতে আমরা ইতোমধ্যে ট্রাফিক বিভাগ ও পরিবেশ অধিদপ্তরকে চিঠি দিয়েছি। তারা আমাদের মৌখিকভাবে অনুমতি দিয়েছেন।
চলতি বর্ষা মৌসুম অর্থাৎ চলতি বছরের আগস্ট মাস পর্যন্ত সড়কটি বন্ধ থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন সিডিএ’র প্রধান প্রকৌশলী। তিনি বলেন, সেখানে ১৮টি পাহাড়ের মধ্যে ৫-৬টি পাহাড় ঝুঁকিপূর্ণ। ঝুঁকি এড়াতে পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি নিয়ে আমরা ঝুঁকিপূর্ণ পাহাড়গুলোর মাটি কেটে ব্যালেন্স করবো। বর্ষা মৌসুম শেষ হলেই যান চলাচলের জন্য পুনরায় সড়কটি খুলে দেয়া হবে।
কাজী হাসান বিন শামস আরো বলেন, সড়কটির কাজ কিন্তু এখনো শেষ হয়নি। নগরীর যানজট নিরসনের স্বার্থে সড়কটি উদ্বোধনের পূর্বেই যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে।
পরিবেশ অধিদপ্তর ও ট্রাফিক বিভাগে দেওয়া চিঠিতে বলা হয়েছে, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর ওমেন এর বহিঃসীমানা দিয়ে লুপ রোড নির্মাণসহ ঢাকা ট্রাংক রোড হতে বায়েজিদ বোস্তামী পর্যন্ত সংযোগ সড়ক নির্মাণ’ প্রকল্পটি চট্টগ্রাম মহানগরীর পরিকল্পিত রোড নেটওয়ার্ক প্রণয়নের লক্ষ্যে মাস্টারপ্ল্যানের নির্দেশনা মোতাবেক একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্প। বর্তমানে প্রকল্পের রাস্তা নির্মাণকাজ শেষ পর্যায়ে। চট্টগ্রাম নগরীর যানজট নিরসনের স্বার্থে সড়কটি উদ্বোধনের পূর্বেই যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। এতে করে পাহাড়গুলো বর্তমানে খুবই ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় আছে এবং চলমান বর্ষা মৌসুমে যেকোনো সময় অনাকাক্সিক্ষত দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে চলমান বর্ষা মৌসুমে পাহাড়ধস ও অনাকাক্সিক্ষত দুর্ঘটনার কথা বিবেচনায় রেখে আলোচ্য প্রকল্পের ফৌজদারহাট ও বায়েজিদ প্রান্তে যান চলাচল বন্ধ রাখা প্রয়োজন।

আপনার ভালো লাগতে পারে এমন আরো কিছু খবর