সীতাকুন্ডে গরুর গাড়ী ডাকাতিসহ হত্যা মামলার আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

 বশির আলমামুন |  শনিবার, আগস্ট ৭, ২০২১ |  ৯:০৪ অপরাহ্ণ
বন্দুকযুদ্ধ
       

বশির আলমামুন
চট্টগ্রামের সীতাকুন্ডে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ কাজল (৪৮) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি গুলি, দুটি এলজি, ১৫টি কার্তুজ, একটি কার্তুজের খোসা, দুটি রামদা ও একটি ছোরা উদ্ধার করা হয়। ৬ আগষ্ট (শুক্রবার) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাট-বায়েজিদ বোস্তামী সংযোগ সড়কটির ৪ নম্বর সেতু এলাকায় এ ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে র‌্যাব। নিহত কাজল কিশোরগঞ্জ জেলার তারুকান্দি উপজেলার পারুলিয়া গ্রামের মৃত আজিজুল হকের ছেলে। চট্টগ্রামে তিনি আকবর শাহ থানার ঝর্ণা পাড় এলাকায় থাকতেন।৭ আগস্ট, শনিবার প্রেরিত এক পেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আবছার।
র‌্যাব জানায়, গোপন সংবাদে র‌্যাব জানতে পারে যে, ওই এলাকায় কয়েকজন ডাকাত সংঘবদ্ধ হয়েছে। এ সময় ডাকাতদের ধরতে অভিযান চালায় র‌্যাবের একটি দল। র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে পড়ে। এ সময় ডাকাতেরা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। র‌্যাবও পাল্টা গুলি করলে নিহত হন কাজল। নিহত কাজল ফৌজদারহাট-বায়েজিদ বোস্তামী সংযোগ সড়কে গরুবাহী গাড়ির চালক আবদুর রহমান হত্যা মামলার আসামি বলেও জানান র‌্যাব।
উল্লেখ্য, গত ১৬ জুলাই ভোররাত ৪টার দিকে ফৌজদারহাট-বায়েজিদ বোস্তামী সংযোগ সড়কটির ৪ নম্বর সেতু এলাকায় চট্টগ্রাম নগরের বিবিরহাটগামী গরুবাহী ট্রাক থেকে কোরবানির গরু লুট করতে না পেরে ট্রাকের চালক আবদুর রহমানকে গুলি করে হত্যা করে ডাকাতেরা। ঘটনার পর নিহত ব্যক্তির এক আত্মীয় সীতাকুন্ড থানায় হত্যা মামলা করেন। এ ঘটনায় র‌্যাবের হাতে দুজনসহ মোট আটজন গ্রেপ্তার হন। তাঁদের মধ্যে চারজন খুনের সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন। অন্য চার আসামি রিমান্ডে আছেন।
পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, আদালতে দেওয়া চার আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতেও কাজল ট্রাকচালক আবদুর রহমানকে গুলি করে হত্যা করেছে বলে জানা গেছে।