চমেকে ভ্যাকসিন নিবন্ধনের ওয়েবসাইট `সুরক্ষা’ হ্যাক

  |  বুধবার, জুলাই ২৮, ২০২১ |  ৩:১০ অপরাহ্ণ
       

নিজস্ব প্রতিবেদক

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ভ্যাকসিন টিকাগ্রহীতাদের ভিড় সামাল দিতে নিয়মিত বেগ পেতে হচ্ছে প্রশাসন ও দায়িত্বে নিয়োজিত স্বাস্থ্যকর্মীসহ সংশ্লিষ্টদের। এরই মাঝে চট্টগ্রামে করোনার ভ্যাকসিনের জন্য নিবন্ধনের ওয়েবসাইট ‘সুরক্ষা’ হ্যাক করে সার্ভারে প্রবেশের অভিযোগ পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের ভ্যাকসিন কেন্দ্রে বিষয়টি নজরে আসার পর থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। ওয়েবসাইট হ্যাকের বিষয়টি নজরে আসার পর মঙ্গলবার বিকালে চমেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আফতাব উদ্দিন নগরীর পাঁচলাইশ থানায় এ ব্যাপারে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।
এদিকে ভ্যাকসিনদান কেন্দ্রের কর্মকর্তারা বলেন, দেশব্যাপী প্রথম দফা কোভিড-১৯ ভ্যকসিন দেওয়ার কার্যক্রমের পর অনেক দিন অপেক্ষা করতে হয়েছে টিকাগ্রহীতাদের । এছাড়া দিন দিন ভ্যাকসিন টিকা প্রতি মানুষের আস্তা বাড়তে থাকায় টিকা প্রত্যাশা বাড়তে থাকে। তাই দ্বিতীয় দফায় গণ ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরুর পর তিন শতাধিক ভুয়া এসএমএস পাঠানো হয়েছে।
পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহিদুল কবীর বলেন, ‘চমেক হাসপাতালের ভ্যাকসিন কেন্দ্রে প্রতিদিন ৫-১০ জন অতিরিক্ত লোক ভ্যাকসিন দিতে আসছেন, যাদের মোবাইলে এসএমএস গেছে, কিন্তু সেই তারিখের সঙ্গে সুরক্ষা অ্যাপের মিল নেই। বিষয়টি নজরে আসার পর উনাদের সন্দেহ হয় যে, সাইটটি কেউ হ্যাক করে সার্ভারে ঢুকে অবৈধভাবে তারিখগুলো পাঠাচ্ছেন। এরপর চমেক হাসপাতালের পক্ষ থেকে জিডি করা হয়েছে। আমরা বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি।’
পুলিশ জানিয়েছে, একাধিক ভ্যাকসিন গ্রহীতার মোবাইলে ক্ষুদেবার্তার মাধ্যমে পাঠানো নিবন্ধনের তারিখ পাওয়া যায়, যার সঙ্গে ওয়েবসাইটের তারিখের মিল নেই অথবা ওয়েবসাইটে তারিখই নির্ধারণ হয়নি। অথচ ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া ক্ষুদেবার্তা নিয়ে প্রতিদিন এরকম অনেকেই ভ্যাকসিন দিতে আসছেন।
চমেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. আফতাব উদ্দিন বলেন, চমেকে প্রতিদিন ৫-১০ জন অতিরিক্ত লোক ভ্যাকসিন দিতে আসছেন, যাদের মোবাইলে এসএমএস গেছে, কিন্তু সেই তারিখের সঙ্গে সুরক্ষা অ্যাপের মিল নেই। এছাড়া কে বা কারা সুরক্ষা সাইট হ্যাক করে ভ্যাকসিন প্রদানের নির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখ করে ভুয়া এসএমএস দিয়ে আসছেন।এ কারণে ভ্যাকসিনের নির্দিষ্ট লক্ষ্যের অতিরিক্ত ভ্যাকসিন গ্রহীতা কেন্দ্রে এসে কার্যক্রমে ব্যাঘাত সৃষ্টি করছেন। তাই এ ব্যাপারে থানায় একটি জিডি করেছি। বিষয়টি নজরে আসার পর চমেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ সার্ভারে ঢোকার পাসওয়ার্ড বদলে দিয়েছে বলে জানা গেছে।