জট এড়াতে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে কনটেইনার ডিপোতে সরানোর অনুমোদন

  |  রবিবার, জুলাই ২৫, ২০২১ |  ৪:৪৭ অপরাহ্ণ
       

নিজস্ব প্রতিবেদক : চট্টগ্রাম বন্দরে সৃষ্ট জট কমাতে সব ধরনের আমদানি পণ্যবাহী কনটেইনার ১৯টি বেসরকারি ডিপোতে সরিয়ে নেওয়ার অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। রোববার দুপুরে এ সংক্রান্তে দাপ্তরিক আদেশ জারি করেছে এনবিআর এমনটি বলেছেন চট্টগ্রাম বন্দরের চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এম শাহজাহান।
তিনি জানান, ডিপোতে কনটেইনার সরানোর অনুমোদন দেওয়ায় এখন আপাতত বন্দরে কনটেইনারের জট হবে না। বিধিনিষেধে যেসব কারখানা খোলা আছে, তারা পণ্য খালাস নিতে শুরু করছেন। জানা গেছে, চট্টগ্রাম বন্দরে ৪৯ হাজার কনটেইনার রাখার ব্যবস্থা আছে। রোববার পর্যন্ত ৪২ হাজার কনটেইনার বন্দরে পড়ে ছিল। স্বাভাবিক সময়ে দিনে সাড়ে তিন হাজার কনটেইনার খালাস হলেও ঈদের পরদিন থেকে রোববার সকাল পর্যন্ত ৩ দিনে মাত্র আমদানি পণ্যবোঝাই ৩৯টি কনটেইনার খালাস নিয়েছেন আমদানিকারকেরা। যদি আমদানিকারকেরা খালাস না নিলেও তা ডিপোতে স্থানান্তর করা যাবে। ফলে বন্দরে জট কমবে।
রাজস্ব বোর্ডের দ্বিতীয় সচিব মেহরাজ-উল-আলম স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়, বন্দরে কনটেইনারের জট নিরসনে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সুপারিশে বন্দর দিয়ে আমদানি হওয়া সব ধরণের পণ্য চালান বেসরকারি ডিপোতে সংরক্ষণ, আনস্টাফিং ও ডিপো থেকে খালাসের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। আদেশে বন্দর থেকে ডিপোতে নেওয়ার সময় স্ক্যানিং এবং বাণিজ্যিক পণ্য ডিপো থেকে খালাসের সময় শতভাগ কায়িক পরীক্ষা করার শর্ত দেওয়া হয়েছে।
করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত ২৩ জুলাই থেকে কঠোর বিধিনিষেধ শুরু হয়েছে। এ সময় কারখানা বন্ধ থাকায় বন্দর থেকে পণ্যের খালাস অস্বাভাবিকভাবে কমে যায়। তাতে বন্দরে কনটেইনার পণ্যের স্তুপ জমছিল। এ পরিস্থিতিতে গত শনিবার চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ বেসরকারি ডিপোতে কনটেইনার সরিয়ে নেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণে এনবিআরের হস্তক্ষেপ চেয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে চিঠি দেয়। বন্দরের ওই চিঠির পর নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সুপারিশে রোববার এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করল এনবিআর।