হাটহাজারীতে অগ্নিকান্ডে এক শিশুর মৃত্যু, আহত ৫: ক্ষয়ক্ষতি ৩০ লাখ

 বশির আলমামুন |  বুধবার, নভেম্বর ১০, ২০২১ |  ৮:৫৭ অপরাহ্ণ
       

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৬ পরিবারের বসতঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এসময় আগুনে দগ্ধ হয়ে রুহান (৬) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়। এসময় নারীসহ আরও ৬ জন দ্বগ্ধ হয়। এতে ক্ষয়ক্ষতি আনুমানিক ৩০ লক্ষ টাকা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ১০ নভেম্বর (বুধবার) ভোররাতে পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডে রঙ্গীপাড়া এলাকার ফজল হক সওদাগরের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। অগ্নিকান্ডের সঠিক কারণ জানা যায়নি। অগ্নিদগ্ধরা হলেন, আনোয়ার খাতুন (৪৫, বৃষ্টি (৬), লাকী আক্তার (৩৫), কালু মিয়া (১৮), ছনোয়ারা বেগম (৬৫) ।
স্থানীয়, প্রত্যক্ষদর্শী ও ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, বুধবার ভোররাতে ঐ এলাকায় আবু তাহের বসত ঘর থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়ে আগুনের লেলিহান শিখা দ্রুত ছড়িয়ে পড়লে ৬ পরিবারের বসত ঘর ও ঘরের রক্ষিত যাবতীয় মালামাল সম্পূর্ণ পুড়ে ছাই হয়ে যায়। অগ্নিকান্ডের সংবাদ ফায়ার সার্ভিসকে অবহিত করলে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে আড়াই ঘন্টা প্রচেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়নন্ত্রে আনে।
অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থরা হলেন, আবু তাহের, মো. শাহ আলম, মাবিয়া খাতুন, নুরুল আলম, নুর বেগম ও ফুরুক আহম্মদ। অগ্নিদগ্ধরা হলেন, আনোয়ার খাতুন (৪৫, বৃষ্টি (৬), লাকী আক্তার (৩৫), কালু মিয়া (১৮), ছনোয়ারা বেগম (৬৫) তাদেরকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বার্ণ ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের পার্শ্ববর্তী বসতঘরের মো. কাশেম গণমাধ্যমকে জানান।
অগ্নিকান্ডের সংবাদ পেয়ে বুধবার সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শাহিদুল আলম ও পৌর সভার সহায়ক কমিটির সদস্য আলী আজম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
হাটহাজারী ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন কর্মকর্তা শাহজাহান বলেন, অগ্নিকান্ডে সংবাদ পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে প্রায় আড়াই ঘন্টা প্রচেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনা হয়। প্রায় ১৫ লক্ষাধিক টাকার মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
এদিকে উপজেলা প্রশাসনের থেকে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ ৬ পরিবারকে দুই বান্ডিল টিন, ৬ হাজার টাকা, ৫ টি করে কম্বল ও খাদ্যসাসগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। তাছাড়া অগ্নিদগ্ধ হয়ে রুহান মৃত্যুর কারণে তার দাফনের জন্য ২০ হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে। অগ্নিকান্ডে ক্ষতি গ্রস্থ পরিবারকে পৌরসভার পক্ষ থেকে ৫০ কেজি ওজনের তিন বস্তা চাউল দেওয়া হয়েছে।