চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা

দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী কেউ যাতে দলে ঢুকতে না পারে

  নিজস্ব প্রতিবেদক |  রবিবার, সেপ্টেম্বর ১৯, ২০২১ |  ৭:৫৬ অপরাহ্ণ
       

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা এবং সংহতি আমাদের সকলের অস্তিত্বকে বাঁচাবে। তাই বিরোধ-বিভেদ আমাদেরকে শুধরে ফেলে সামনের দিকে এগুতে হবে। তিনি আরো বলেন, আমাদের সামনে কঠিন সময়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। তাই দলের মধ্যে ছোটখাটো ভুলভ্রান্তিকে নিয়ে বড় কিছু ভাবার অবকাশ নেই।

রোববার সকাল থেকে দিনব্যাপী থিয়েটার ইনস্টিটিউটে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতির বক্তব্যে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন বলেন, সবার সহযোগে যেটুকু সিদ্ধান্ত হবে তা অবশ্যই মেনে নিতে হবে। তবে এ নিয়ে বিশৃঙ্খলা বা বিভেদ কখনো গ্রহনীয় হবে না। যারা দলে থেকে শৃঙ্খলা বিরোধী কর্মকান্ড করবেন তাদেরকে কোনভাবেই ছাড় দেয়া হবে না। তিনি দৃঢ়ভাবে বলেন যারা দায়িত্বে থেকে সংগঠনের কাজ নিয়ে অবহেলা করে থাকেন এবং বিভিন্ন রকম অজুহাত সৃষ্টি করে থাকেন তারা দয়া করে পদ থেকে সরে দাঁড়ান। একই সাথে তিনি ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দদের কার্যকলাপের উপর নির্ভর করে ওয়ার্ডের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতৃবৃন্দদের নাম প্রকাশ করা হবে। তিনি সবার গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ১২ অক্টোবর থেকে ইউনিট, ওয়ার্ড ও থানা, সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হবে।

আগামী ২১ সেপ্টেম্বর সাবেক মন্ত্রী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এম এ মান্নান, ও ২২ সেপ্টেম্বর সাবেক সাধারণ সম্পাদক, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাজী ইনামুল হক দানুর মৃত্যুবার্ষিকী এবং ২৮ সেপ্টেম্বর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার জন্মবার্ষিকী পালন, ৩রা অক্টোবর প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা প্রয়াত চৌধুরী এন জি মাহমুদ কামাল এর মৃত্যুবার্ষিকী পালনে দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশনা প্রদান করেন।

শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এম.পি বলেন- অন্যান্য জেলার চাইতে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ অনেক শক্তিশালী। আমার অভিজ্ঞতায় চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ স্থানীয় নেতৃত্বকে বেগবান করে যে পর্যায় আসছে তা নেত্রীর আস্থাভাজন। সামনে জাতীয় নির্বাচন আসছে। এক্ষেত্রে তৃণমূলকে আরো শক্তিশালী হতে হবে। বিশেষ করে মহানগর আওয়ামী লীগ নব উদ্যমে নতুন সদস্য ফরমের মাধ্যমে যে কর্মসূচি গ্রহণ করেছে তা তৃলমূলে পরিচ্ছন্ন এবং ত্যাগী কর্মীরা সদস্যে অন্তর্ভুক্ত হতে পারবে।

তিনি বলেন, আমরা শেখ হাসিনার কর্মী। নেত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী আমাদেরকে চলতে হবে। এর বাইরে প্রথম শর্ত দলীয় শৃঙ্খলা বজায় রাখতে হবে। চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এম. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন আমরা দলীয় পদ পদবী নিয়ে যারা আছি তাদেরকে স্বীয় দায়িত্ব পালনে আরো সচেষ্ট হতে হবে এবং অনুপ্রবেশকারীদের দলে যেন ঢুকতে না পারে সে ব্যাপারে আমাদের কঠোর অবস্থান গ্রহণ করতে হবে।
চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব শফিকুল ইসলাম ফারুকের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ১নং ওয়ার্ডের আবদুল মান্নান চৌধুরী, ২নং ওয়ার্ডের ফরিদ আহমদ চৌধুরী, ৩নং ওয়ার্ডের আবদুস শুক্কুর ফারুকী, ৪নং ওয়ার্ডের এড. আইয়ুব খান, ৫নং ওয়ার্ডের খালেদ হোসেন মাশুক, ৬নং ওয়ার্ডের শামসুল আলম, ৭নং ওয়ার্ডের আবদুর রহিম, ৮ নং ওয়ার্ডের শেখ সরওয়ার্দী, ৯নং নং ওয়ার্ডের সরওয়ার মোরশেদ কচি, ১০নং ওয়ার্ডের ইকবাল চৌধুরী, ১১ নং ওয়ার্ডের আসলাম সওদাগর, ১২ নং ওয়ার্ডের নুরুল আমিন কালু, ১৩ নং ওয়ার্ডের কায়সার মালিক, ১৪ নং ওয়ার্ডের দিদারুল আলম মাসুম, ১৫ নং ওয়ার্ডের আবুল বশর, ১৬ নং ওয়ার্ডের মোজাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, ১৭ নং ওয়ার্ডের আলী নেওয়াজ, ১৮ নং ওয়ার্ডের আহমেদ ইলিয়াছ, ১৯ নং ওয়ার্ডের ইফতেখারুল আলম জাহেদ, ২০ নং ওয়ার্ডের আবু তৈয়ব ছিদ্দিকী, ২১ নং ওয়ার্ডের মিথুন বড়–য়া, ২৩ নং ওয়ার্ডের এম এ হান্নান, ২৪নং ওয়ার্ডের সৈয়দ মো: জাকারিয়া, ২৫ নং ওয়ার্ডের আলহাজ্ব আবুল কাশেম, ২৬নং ওয়ার্ডের নাজিমুল ইসলাম মজুমদার, ২ নং ওয়ার্ডের আবদুল্লাহ আল ইব্রাহিম, ২৮ নং ওয়ার্ডের সেলিম রেজা, ২৯ নং ওয়ার্ডের আলহাজ্ব আলী বক্স, ৩০নং ওয়ার্ডের সালাউদ্দিন ইবনে আহমেদ, ৩২ নং ওয়ার্ডের ইকবাল হাসান, ৩৩নং ওয়ার্ডের স্বপন কুমার মজুমদার, ৩৪ নং ওয়ার্ডের আলহাজ্ব আশফাক আহমেদ, ৩৫নং নং ওয়ার্ডের হাজী নুরুল আমিন শান্তি, ৩৬ নং ওয়ার্ডের ইসকান্দর মিয়া, ৩৭ নং ওয়ার্ডের আবদুল মান্নান, ৩৮ নং ওয়ার্ডের হাজী মো: হাসান, ৩৯ নং ওয়ার্ডের সুলতান নাছির উদ্দিন, ৪০নং ওয়ার্ডের হাজী আবদুল বারেক, ৪১ নং ওয়ার্ডের ছালেহ আহমদ চৌধুরী, ৪২নং ওয়ার্ডের সৈয়দ আমিনুল হক, ৪৩নং ওয়ার্ডের আবদুল মালেক প্রমুখ। এছাড়া বর্ধিত সভায় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব নঈম উদ্দিন চৌধুরী, এড. সুনীল কুমার সরকার, এড. ইব্রাহিম হোসেন চৌধুরী বাবুল, আলহাজ্ব খোরশেদ আলম সুজন, এম জহিরুল আলম দোভাষ, আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য আলহাজ্ব বদিউল আলম, আলহাজ্ব আবদুচ ছালাম, উপদেষ্টা আলহাজ্ব শফর আলী, শেখ মাহমুদ ইছহাক, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য নোমান আল মাহমুদ, শফিক আদনান, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, হাসান মাহমুদ শমসের, এড. শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী, চন্দন ধর, মশিউর রহমান চৌধুরী, হাজী মো: হোসেন, হাজী জহুর আহমেদ, জোবাইরা নার্গিস খান, জালাল উদ্দিন ইকবাল, মাহবুবুল হক মিয়া, দিদারুল আলম চৌধুরী, আবদুল আহাদ, আবু তাহের, হাজী শহিদুল আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য এম এ জাফর, আলহাজ্ব পেয়ার মোহাম্মদ, হাজী দোস্ত মোহাম্মদ, গাজী শফিউল আজিম, এড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, কামরুল হাসান ভুলু, ইঞ্জিঃ বিজয় কিষাণ চৌধুরী, জাফর আলম চৌধুরী, মহব্বত আলী খান, সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, অমল মিত্র, আবদুল লতিফ টিপু, ড. নেছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, হাজী বেলাল আহমেদ, মোরশেদ আক্তার চৌধুরী, থানা আওয়ামী লীগের আলহাজ্ব ফিরোজ আহমেদ, আলহাজ্ব ফয়েজ আহমেদ, মনিরুল হক, হাজী ছিদ্দিক আলম, মো: খলিলুর রহমান, হারুন অর রশিদ, মো: আবু তাহের, হাজী সুলতান আহমদ চৌধুরী, আলহাজ্ব এম এ হালিম, এ এস এম ইসলাম, রেজাউল করিম কায়সার, মো: ইলিয়াছ, হাজী মো: ইছহাক, মো: মঈনুদ্দিন, মো: সালাউদ্দিন প্রমুখ। বর্ধিত সভায় ৪৩টি সাংগঠনিক এবং ১৫টি থানার সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, আহ্বায়ক, যুগ্ম আহ্বায়কগণ উপস্থিত ছিলেন।
সভার প্রারম্ভে করোনাকালীন সময়ে মহানগর আওয়ামী লীগের যে সকল নেতাকর্মী প্রয়াত হয়েছেন তাদের স্মৃতির শ্রদ্দা জানিয়ে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন কোতোয়ালী থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব ফিরোজ আহমেদ।