টানা বৃষ্টিতে ডুবে গেছে চট্টগ্রামের নিম্নাঞ্চল: দুর্ভোগে নগরবাসী, পানিতে ভেসে গেছে যুবক

  বশির আলমামুন |  বুধবার, আগস্ট ২৫, ২০২১ |  ৯:১৩ অপরাহ্ণ
       

মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) মধ্য রাত থেকে বুধবার সকাল ৯ টা পর্যন্ত টানা বৃষ্টি হয়েছে। এতে নগরীর বেশ কয়েকটি এলাকায় বৃস্টির পানি জমে সৃষ্টি হয়েছে জলাবদ্ধতা। সকাল থেকে কর্মস্থলে যাওয়া মানুষ এবং প্রয়োজনে বাসাবাড়ির বের হওয়া নগরবাসী চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। বুধবার (২৫ আগস্ট) নগরীর হালিশহর, বাকলিয়া, আগ্রাবাদ সিডিএ, বহদ্দারহাট, ষোলশহর, দুই নম্বর গেইট, মুরাদপুর, শোলকবহর, প্রবর্তক মোড়, চকবাজার সহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখাগেছে এলাকা হাঁটু পানিতে তলিয়ে গেছে। অফিস গামীরা পায়ে হেঁটে ও রিকশায় অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে গেছেন। আবহাওয়া অফিস বলছে, মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় এই বৃষ্টিপাত। যা আরও ২ দিন অব্যাহত থাকতে পারে।
সকালে ষোলশহর এলাকায় অফিসগামী লিয়াকত আলী বলেন, চট্টগ্রামে একঘন্টার বৃষ্টিতে পানিতে তলিয়ে যায়। যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। একঘন্টা পানিতে দাড়িয়ে আছি কোন গাড়ি পাচ্ছি না।জন প্রতিনিধিদের খামখেয়ালিপনার কারণে চট্টগ্রাম নগরবাসীর এ দু:খ যাচ্ছে না। এদিকে জলাবদ্ধতায় সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েন কর্মজীবী নারীরা। সড়কে পর্যাপ্ত যানবাহন না থাকায় হাঁটুপানি মাড়িয়ে যেতে হয় কর্মস্থলে।
জলাবদ্ধতার কারণে ঘর থেকে বের হওয়া নগরবাসীর চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। পানি ঢুকে সিএনজি নষ্ট হয়ে যেতে দেখা গেছে বিভিন্ন জায়গায়। অফিসমুখী মানুষকে হাঁটু পর্যন্ত পানি দিয়ে হেটে বা অতিরিক্ত ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে। জলাবদ্ধতার কারণে দুই নম্বর গেইট এলাকায় যানজট সৃষ্টি হয়েছে।
দুর্ভোগের কথা জানিয়ে খালেদা আখতার নামে এক গার্মেন্ট কর্মী বলেন, কারখানায় যাওয়ার উদ্দেশ্যে ঘর থেকে বেরিয়ে রাস্তায় এসে আটকে গেছি। যে পরিমাণ পানি, কোনোভাবেই চলাফেরা করা যাচ্ছে না। রিকশা ভাড়াও বেশি নিয়েছে। সড়কে সকালে ছিল না পর্যাপ্ত বাসও।
এই বৃষ্টি আরও ২দিন থাকতে পারে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ শেখ ফরিদ আহমদ বলেন, বুধবার (২৫ আগষ্ট)সকাল নয়টা পর্যন্ত ২৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে চট্টগ্রামে। মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকায় বৃষ্টি হচ্ছে।
এদিকে নগরের মুরাদপুর এলাকায় বৃষ্টির পানির তীব্র ¯্রােতে নালায় পড়ে মো. সালামত (৩৪) নামে এক যুবক নিখোঁজ হয়েছেন। ফায়ার সার্ভিসের ৫ ঘণ্টার চেষ্টায়ও সন্ধান মিলেনি তার। বুধবার (২৫ আগস্ট) সকাল ১১টায় পাঁচলাইশ থানাধীন মুরাদপুর পুলিশ বক্স এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। অতিরিক্ত পানির ¯্রােতের কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। তবে নিখোঁজ সালামতের ঠিকানা জানা যায়নি।
আগ্রাবাদ ফায়ার স্টেশনের লিডার বিপ্লব কুমার নাথ বলেন, নালায় পড়ে এক ব্যক্তি নিখোঁজ হওয়ার খবর পেয়ে সকাল ১১টায় ঘটনাস্থলে যাই। কয়েক ঘণ্টা তল্লাশি চালিয়েও সন্ধান মিলেনি। পরে আমরা ফিরে গেলে বেলা আড়াইটার দিকে ৯৯৯ এ ফোন করে আবারও খবর দেয় স্থানীয়রা। আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। ফায়ার সার্ভিসের ৫ সদস্যের ডুবুরি দল নিখোঁজ যুবককে উদ্ধারে কাজ করছে। এর আগে ৩০ জুন ষোলশহর ২ নম্বর গেইটের মেয়র গলিতে বৃষ্টির সময় সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নালায় পড়ে গিয়ে দুইজনের মৃত্যু হয়। এ সময় আহত হন আরও তিনজন।